Friday , 23 February 2018
Home জীবনযাপন স্নেহ মমতা কীভাবে মেয়েকে পিরিয়ডের আগে তৈরি করবেন জেনে নিন

কীভাবে মেয়েকে পিরিয়ডের আগে তৈরি করবেন জেনে নিন

প্রত্যেক মেয়েরই প্রথম পিরিয়ড মনে থাকে। সেই ফুঁপিয়ে ওঠা কান্নার দিনটা তারা কখনও ভোলে না। তাই মায়েদের উচিত মেয়েকে আগে থেকে রেডি করা। পিরিয়ড হওয়ার আগেই তাকে বলা, “ভয়ের কিছু নেই। এবার তুমি বড় হলে।”

মেয়েদের বড় হওয়ার সময় মায়ের একটা বিশেষ ভূমিকা থাকে। বিশেষ করে সেই মেয়ের যদি বয়ঃসন্ধির সময় ঘনীভূত হয়। মায়ের সবচেয়ে বেশি সতর্ক হওয়া উচিত সেই সময়। আমাদের মায়েরা আগে থাকতে কিছু বলতেন না। যেদিন বাড়িতে কান্নাকাটির রোল পড়ত, মা হঠাৎই তৎপর হয়ে উঠতেন। মেয়ের স্বাধীনতায় পড়ত দাঁড়ি। বাইরে বেরনো নিষেধ। ছেলেদের সঙ্গে খেলা নিষেধ। লম্বা পোশাক, বুক ঢাকা জামা, চলনবলন, বসার ধরন – সবেতেই মেয়েকে রাতারাতি বদল আনতে চাপাচাপি শুরু করতেন মায়েরা। এতে সমস্যায় পড়ত ছোট্ট মেয়েটি। হঠাৎ এই পরিবর্তনকে সে মেনে নিতে পারত না। ফুঁপিয়ে কেঁদে উঠত। ফলত, বড় হওয়ার সময় এই হঠাৎ পরিবর্তন কোনও মেয়েই ভুলতে পারে না।

কিন্তু আজকালকার মায়েরা অনেক আধুনিক। অনেক শিক্ষিতা। মেয়ের সঙ্গে সাবলীল বন্ধত্ব তাঁরা রাখতে জানেন। ফলত, পিউবার্টির সময় মেয়েকে আগে থেকে তৈরি না করার তাঁদের কোনও কারণ নেই। কীভাবে একজন মা তাঁর মেয়েকে পিরিয়ডের আগে তৈরি করবেন জেনে নিন –

১. মেয়েকে আগেই বলুন যে কয়েকদিনের মধ্যেই তার পিরিয়ড শুরু হবে। হঠাৎ রক্তপাতে সে যেন বিচলিত না হয়ে পড়ে। কান্নাকাটি না করে।

২. বলুন পিরিয়ড কোনও রোগ না। সব মেয়েরই এটি হয়। প্রতি মাসে ৫-৬দিন লাগাতার রক্তপাত হয়। আবার বন্ধও হয়ে যায়। সেসময় সাবধানে থাকা উচিত। লাফালাফি করা উচিত না।

৩. মেয়েকে স্যানিটারি ন্যাপকিন চিনিয়ে দিন। এতকাল TVতে যে সব অ্যাড সে দেখেছে, সেগুলিকে এবার ব্যবহার করার সময় এসেছে তার। কীভাবে স্যানিটারি ন্যাপকিন পরতে এবং খুলে হয় বলে দিন।

৪. যেহেতু যে কোনওদিনই তার পিরিয়ড হতে পারে, আগে থেকেই স্কুলব্যাগে একটি ছোটো পাউচে স্যানিটারি ন্যাপকিন রেখে দিতে বলুন।

৫. পিরিয়ড নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে আলোচনা করতে বারণ করে দিন। আমাদের সমাজ এখনও অত আধুনিক হয়নি, যে ছেলেদের সঙ্গে সেটি নিয়ে আলোচনা করা যাবে।

৬. কতক্ষণ পরপর স্যানিটারি ন্যাপকিন বদলাতে হয়, সেটিও মেয়েকে ভালো করে বুঝিয়ে দিন। বলুন দাগ যেন জামায় না লাগে। তাই সময় সময় ন্যাপকিন বদলানো প্রয়োজন।

৭. এই সময় মেয়ের মনের জোর বাড়ানো প্রয়োজন। মেয়েকে ভালো করে বুঝিয়ে দিন সে যেন বিষয়টি নিয়ে মনমরা না হয়ে পড়ে। তাকে বলুন এবার সে ছোট্ট মেয়ে থেকে একজন মহিলায় পরিণত হয়েছে। সুতরাং, নিজের লাজ, সম্ভ্রম বজায় রাখা একান্ত জরুরি।

ট্যাগ সমূহঃ
ডেস্ক প্রকাশক (উ/প্র) | Published On:January 22, 2017

❝আরো পড়ুন❞

➧সকালে ঘুম ভাঙার পর ছেলেদের লিঙ্গ দাঁড়িয়ে থাকার কারন জেনে নিন

➧যৌনেচ্ছাকে দমন করতে হলে, মনকে সংযত করতে হবে, প্রশ্ন হচ্ছে কীভাবে ?

➧বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যৌন শক্তি কমে যাচ্ছে ? জানুন যৌন শক্তি বৃদ্ধি করার উপায়

➧জেনে নিন কোন তিলের কী অর্থ…

➧অনেক পুরুষ-ই জানেন না যে, কাকে বলে ফোরপ্লে!

➧ভায়াগ্রার দিন শেষ, যৌবন বাড়াবে নয়া চিকিৎসা !

❝এই বিভাগের আরো পোস্ট পড়ুন❞

  • ➧ডে কেয়ার সেন্টারটি আপনার শিশুর সঠিক পরিচর্যা করবে ?

  • ➧বাবা-মায়ের ধূমপানে হয় শিশুর অ্যাজমা

  • ➧১৫ মিনিটের বেশি টিভি দেখলে শিশুদের সৃজনশীলতা কমে যায়

  • ➧একটি শিশুর দৈনিক কতক্ষণ ঘুমানো উচিত?

  • ➧যে শিশুরা অন্য শিশুদের থেকে একেবারে আলাদা হয়